নাসির বলল , কথা বলব না : পাপন

বছরটা খুব খারাপই গেল নাসির হোসেনের। বাজে ফর্মের কারণে এ বছরই তিন-তিনবার দল থেকে বাদ পড়তে হলো বাংলাদেশ দলের একসময়ের অন্যতম ভরসার। হ্যাঁ, ‘অন্যতম ভরসা’র আগে ‘একসময়’ শব্দটিই বলতে হচ্ছে। প্রথমবার বাদ পড়লেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময়, দ্বিতীয়বার চলমান জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে। সর্বশেষ আজ। ওয়ানডে দলেও নেই নাসির।
নাসির প্রথম জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার স্বাদ পেয়েছিলেন গত ২৫ মার্চ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলার সময়ই। তার আগে খেলেছেন টানা ১৪টি টেস্ট, ৩৫টি ওয়ানডে ও ২০টি টি-টোয়েন্টি। তাঁর অভিষেকের দিন থেকে ক্রিকেটের তিন সংস্করণে ২৫ মার্চের আগ পর্যন্ত বাংলাদেশ দলের ম্যাচ সংখ্যাও ছিল একই। অর্থাৎ টানা আড়াই বছর খেলার পর নাসিরের বাদ পড়েছিলেন সেবার। কেন? একটাই কারণ—বাজে ফর্ম।
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর সুযোগ পেয়েছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। সেখানেও বলার মতো কিছু করতে পারেননি। এরপর ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে বাদ পড়লেন। এবার নেই ওয়ানডেতেও। এ বছর ওয়ানডেতে ১৩ ইনিংসে নাসিরের রান মাত্র ২২৫, গড় ২০.২৫। ফিফটি নেই একটিও। সর্বোচ্চ ৪১, আফগানিস্তানের বিপক্ষে ফতুল্লায়।
কোথায় হারালেন সেই নাসির—যার ব্যাটে বাংলাদেশ খুঁজে পেত পরম নির্ভরতা। কোথায় সেই নাসির, যিনি দলের সংকটময় কিংবা শ্বাসরুদ্ধকর মুহূর্তে ম্যাচ বের করে নিয়ে আসতেন নির্ভারচিত্তে। এভাবে দল থেকে বাদ পড়াটা তার জন্য কতটা ধাক্কার? নাসির প্রশ্নগুলো শোনেন, কোনো জবাব দেন না। হতাশ কণ্ঠে কেবল বলেন, ‘ভাই খেলাধুলা-সম্পর্কিত কোনো কথা বলতে ইচ্ছে করছে না।’ তাহলে অন্য কথাই বলা যাক—এমন আহ্বানেও সাড়া দেন না নাসির। বোঝা যায়, মন ভালো নেই তাঁর!






Related News

  • নতুন ঠিকানায় টাইগারদের সেই কোচ হোয়াটমোর
  • আইসিসিতে বাংলাদেশের প্রতি অস্ট্রেলিয়ার অন্যরকম ভালোবাসা
  • বল কুড়াতে গিয়ে শিশু ক্রিকেটারের মৃত্যু
  • আরও একবার মাটি ও মানুষের হৃদয়ে প্রবেশ করলেন মাশরাফি!
  • শিশুটি ১৬ কোটি বাংলাদেশির গর্ব, বলুন তো কে এই শিশু?
  • টাইগারদের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে ঢাকায় আসছে অস্ট্রেলিয়া
  • গোটা বিশ্বে সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার কারা? জানালেন মাইকেল ক্লার্ক
  • পাকিস্তান সুপার লিগে ‘গোল্ড’ ক্যাটাগরিতে শাহরিয়ার নাফিস