ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য বড় দুঃসংবাদ

রাঁচির ধীর উইকেটে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষের চতুর্থ ওয়ান ডে ম্যাচে ২৬১ তাড়া করতে গিয়ে সব উইকেট হারিয়ে ১৯ রানের পরাজয় বরণ করে ভারতীয়রা। এক সময়ের বিশ্ববিখ্যাত ব্যাটিং লাইনআপ এর ভারতীয় ক্রিকেটের এমন দিনে তাই হতাশ ভারতীয় ভক্তরা। তবে, ভারত দলপতি মহেন্দ্র সিং ধোনি নতুনদের সমর্থনই যোগাচ্ছেন। তারা তাদের নিজেদের মতো করেই খেলা বের করে নিতে পারবে, এমনকি সেটা বড় বড় শট খেলে হলেও, এমনটাই মনে করেন ধোনি। মনিষ পান্ডে ও হারদিক পান্ডিয়া’র আউট দুটি’কে ঈঙ্গিত করেই কথাটি বলেন তিনি। মূলত তাদের উইকেট যাওয়ার পর থেকেই ধ্বস নামে ভারতীয় ব্যাটিং এ এবং ১২৮ রানে ২ উইকেট থেকে তারা পৌঁছে যায় ১৬৭ রানে ৭ উইকেটে, যেখান থেকে খেলাতে ফিরে আসা অনেক কষ্টসাধ্য হয়ে দাঁড়ায়।

খেলা শেষে পুরষ্কার বিতরণীর সময় ধোনি বলেন যে, ক্রিকেট খেলাটা বদলে যাচ্ছে। মানুষ এখন বড় বড় শট খেলতে পছন্দ করে। তাদেরকে সেই সকল শট খেলা থেকে বিরত রাখা উচিৎ নয়। কেউই চাইবেন না যে খেলোয়াড়েরা খোলসের ভিতর ঢুকে যাক। তারা নিজেদের পছন্দসই এলাকায় বল পেয়েছে বলেই বড় শট খেলেছে। আমাদের ৫ম, ৬ষ্ঠ ব্যাটসম্যান এখনও অনেক নতুন, খেলার মধ্য দিয়েই তাদের শেখার সুযোগ দিতে হবে। তারা কখনও বড় বড় শট খেলবে, কখনও বাইরে ঠেলে দিয়ে রান করবে। যখন তারা ১৫-২০টা ম্যাচ খেলে ফেলবে, ততদিনে নিজেরাই বের করে নিতে পারবে, কোনটা তাদের জন্য সবচাইতে ভাল কাজ করে।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনেও ধোনির বক্তব্যে একই সুর পাওয়া যায়। রাঁচির উইকেটের মত এরূপ ধীর উইকেটে ব্যাট করাটা কতটা চ্যালেঞ্জিং, সেটা উল্লেখ করেই তিনি বলেন যে, খেলোয়াড়দের এরকম ম্যাচ খেলাটা গুরুত্বপূর্ণ। খেলার মাঝ দিয়েই তারা বুঝে উঠতে পারবে এইরকম পরিস্থিতিতে চাপের মাঝে কিরকম খেলা বের করে নিতে হয়, কিরকম খেললে এইরকম রান তাড়া করা সম্ভব। পরিস্থিতির মুখামুখি হওয়া ছাড়া এটা শেখা খুবই দুরূহ। পরিস্থিতি থেকেই সবাই অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। হ্যাঁ, খেলা দেখেও অনেক জিনিস শেখা যায়, কিন্তু আপনি যখন কোনও পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাবেন, সেই চাপ অনুভব করতে পারবেন, তখনই সব চাইতে ভাল শিখতে পারবেন। এই ম্যাচ তাদের জন্য ভাল একটা শিক্ষা হিসেবে কাজে দেবে, তাদের কিছু সময় দিন। ভাল একটা রান তাড়া করতে হলে দলের ৫, ৬, ৭ এ নামা ব্যাটসম্যানদের থেকেও কিছু ভূমিকার প্রয়োজন হয় একটি ম্যাচে এবং আমরা এইসকল অবস্থানে ভাল কিছু নতুন খেলোয়াড় পেয়েছি। আমাদের এখন তাদের একটু সময় দেয়া প্রয়োজন। অর্ডার অনুযায়ী খেলা খুবই কঠিন একটা কাজ, সকলেই সকল অর্ডারে খেলে অভ্যস্ত থাকে না, যে কোনও অবস্থানেই এসে মানিয়ে নেয়া যায় না, খেলার মধ্য দিয়েই সবাইকে মানিয়ে নিতে হয়। এই সকল অবস্থানের জন্য কখনোই পরিপূর্ণ প্রস্তুত খেলোয়াড় পাওয়া যায় না।






Related News

  • এক বিশ্বকাঁপানো টাইগার ক্রিকেটারকে হঠাৎ বহিষ্কার করেছে বিসিবি
  • পাকিস্তানে বিশ্ব একাদশ পাঠাবে আইসিসি!
  • নায়লা নাঈম এবং সাব্বিরের গোপন ভিডিও ফাঁস । বিপাকে সাব্বির, নিষিদ্ধ হতে পারেন
  • বিপিএল আসরে আকরাম ও গাঙ্গুলি লড়বেন যে টিমে!
  • ওয়াসিম আকরাম গায় দেবেন লাল-সবুজের
  • ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য বড় দুঃসংবাদ
  • বিপিএলে আশরাফুল কে নেয়ার বিষয়ে এ কি বললেন নাফিসা কামাল (দেখুন ভিডিওসহ)
  • যে ৫টি খাবার ভায়াগ্রার চাইতে বেশি উত্তেজক!